06:53pm  Tuesday, 26 Jan 2021 || 
   
শিরোনাম
 »  দেশে বর্তমানে চার লাখ ৮১ হাজার ২৯টি ফিটনেসবিহীন গাড়ির রয়েছে     »  ব্যায়াম প্রয়েোজন দেহ ও মনের সুস্থতার জন্য      »  করোনা মোকাবিলায় আওয়ামী লীগ সরকারের আগেই পরাজয় হয়েছে     »  লুটের এক টেক্সবুক এক্সাম্পল এখন বাংলাদেশ     »  ১১ ফেব্রুয়ারি কলাবাগানে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবেদন      »  দুই মেয়েকে হত্যার পর বাচিঁয়ে তুলতে পারবে দাবি দম্পতির     »  প্রথম নারী অর্থমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে     »  বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পিছিয়ে ৩ মার্চ     »  আজ ২৬ জানুয়ারি; আজকের দিনে জন্ম-মৃত্যুসহ যত ঘটনা     »  দ্বিতীয়বারের মতো উইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করলো বাংলাদেশ   



নিউ লাইফ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান অসহায় বৃদ্ধ-মা ছেলের পাশে
১ জানুয়ারি ২০২০, শুক্রবার, ১৮ পৌষ ১৪২৭, ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২



গাইবান্ধায় প্রতিবন্ধী ছেলেকে নিয়ে বৃদ্ধ মা-ছেলের  ভাসমান বসবাস খবর oknews24bd.com সহ বিভিন্ন গনযোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশের পর সেই বৃদ্ধ মায়ের পাশে দাঁড়িয়েছেন নিউ লাইফ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও আমেরিকা প্রবাসী প্রকৌশলী আবু জাহিদ নিউ।

বয়স প্রায় ৭২ বছর ছুঁইছুঁই। তার একমাত্র ছেলে আশকর আলী (৫২)। ছেলেটিও বাকপ্রতিবন্ধী। উত্তরাধীকার সূত্রে কোনো সহায় সম্বল না থাকায় মা-ছেলে রয়েছে ঠিকানাহীন অবস্থায় বসবাস করে আসছেন বিভিন্ন হাট-বাজারে খেয়ে না খেয়ে।

সম্প্রতি, গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের কাশিয়াবাড়ী আমিন মার্কেটের পাশে খোলা আকাশের নিচে বিছানাপত্র নিয়ে দেখা যায় এই বৃদ্ধ মা-ছেলেকে।

জানা যায়, ১৯৭০ সালে পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের কাশিয়াবাড়ী গ্রামের আলতাব হোসেনের সঙ্গে কয়েদভানুর বিয়ে হয়। সেখানে দাম্পত্য জীবনে আশকর আলীর জন্ম হয়। এরপর বছর খানেক যেতে না যেতেই বিবাহ বিচ্ছেদ হয় কয়েদভানুর।

পরে কয়েদভানু সন্তানকে হাতে নিয়ে কাশিয়াবাড়ী গ্রামের তজের প্রধানের সঙ্গে আবারও বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের কিছুদিন পর কল্পনা ও গোলাপী নামে ২ মেয়ের জন্মদেন। এর পর সেখানেও কয়েদভানুকে তার স্বামী বিবাহ্ বিচ্ছেদ হয়।

কয়েদভানু সন্তানদের কথা ভেবেই রয়ে যান ওই গ্রামেই। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে জীবন-জীবিকার তাগিদে প্রতিবন্ধী ছেলেকে নিয়ে কয়েদভানু অন্যের বাড়িতে কাজকর্ম করে অনেক দুঃখে-কষ্টে।

এমনকি অর্থাভাবে পারেনা ভাল কোন চিকিৎসা সেবা নিতে। বর্তমানে কয়েদভানু ও ছেলে আশকরের নানা রোগ বাসা বেঁধেছে তাদের শরীরে। যেন বয়সের ভাঁড়ে নুয়ে পরেছেন মা-ছেলে দুজনে।

স্থানীয়রা বলেন, তাদের নিজস্ব কোন ঘরবাড়ী না থাকায় দীর্ঘদিন অন্যের আশ্রয়ে থাকতেন। কিন্তু ৯ মাস পুর্বে একমাত্র থাকার সেই আশ্রয়টুকু হারিয়ে এখন বিভিন্ন হাট-বাজারে ভাসমানভাবে বসবাস করছে তারা।

আবার কখনও কাশিয়াবাড়ী আমিন মার্কেটের বারান্দায় আবার কখনও খোলা আকাশের নিচে এই কনকনে শীতে রাত্রি যাপন করছেন। এছাড়াও রাস্তায় চুলা বসিয়ে খাবার রান্না করে থাকেন বৃদ্ধা কয়েদভানু।

 শুধু তাই নয়, তাদের পড়নে নেই কোন ভালো কাপড়-চোপর। নেই কোন খাবারের কোন সু-ব্যবস্থা। মাঝে মধ্যে সরকারী ত্রাণসামগ্রী ও বর্তমানে বাজারের কতিপয় ব্যবসায়ীদের এক টাকা, দু-টাকা করে চেয়ে নিয়ে প্রতিনিয়ত দিন চলে মা-ছেলের।

তাদের দেখভালের কোন আত্মীয়স্বজন না থাকায় অসহায়ত্ব জীবনে বৃদ্ধা ৭২ বছর বয়সী মা কয়েদভানু ছেলে ৫২ বছর বয়সী শারীরিক ভারসাম্যহীন আশকর এভাবেই দেখভাল করে চলেছেন।

বৃদ্ধ ৭২ বছর বয়সী মা কয়েদভানু ও বাকপ্রতিবন্ধী ছেলের করুন অবস্থার খবর সামাজিক গনযোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকাশে মানবতার ফেরিওয়ালা আমেরিকা প্রবাসী প্রকৌশলী আবু জাহিদ নিউ বসবাসের জন্য তাদেরকে একটি টিনসেড ঘর, টিউবওয়েল ও একটি টয়লেট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

প্রতিশ্রুতি অনুযায়ি ৩১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার  বিকেলে নিউ লাইফ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আবু জাহিদ নিউয়ের দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে নিউ লাইফ ফাউন্ডেশনের কর্মী রশিদুল ইসলামের মাধ্যমে বসবাসের জন্য  ঘর, টয়লেট, টিউবওয়েল, চৌকি, শাড়ী, ব্লাউজ, ছায়া, জুতা, লুঙ্গী, গেঞ্জী, কম্বল, হাড়ি, পাতিল, জগ, মগ, প্লেটসহ নগদ টাকা অর্থ প্রদান করা হয়। বৃদ্ধা কয়েদভানু ঘর থাকার আশ্রয় হিসেবে ঘর পেয়ে আনন্দে আবেগে আত্মহারা হয়ে পড়েন।
ফারুক হোসেন, গাইবান্ধা।
আজ জুমআ বার : আজকের বিশেষ ইবাদত ও আমল
এই নিউজ মোট   69    বার পড়া হয়েছে


হ্যালোআড্ডা



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.