07:47am  Thursday, 21 Jan 2021 || 
   
শিরোনাম



পদ্মাসেতুর রেলওয়ে স্টিনজার নদী থেকে তোলা শুরু
১৩ জানুয়ারি ২০২১, বুধবার, ২৯ পৌষ ১৪২৭, ২৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২



নদী ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে যাওয়া ১৯২টি পদ্মাসেতুর রেলওয়ে স্টিনজার পদ্মার গভীর থেকে তোলা শুরু হয়েছে। দীর্ঘ ৫ মাস পর বুধবার সকাল থেকে প্রতিটি সাড়ে ৭ মেট্রিক টন ওজনের চারটি স্টিনজার তুলে পদ্মাতীরের ইয়ার্ডের পাশে রাখা হয়েছে। বিশাল ক্রেনে করে বিলীন হওয়া অন্যান্য যন্ত্রপাতিও তোলা হচ্ছে।
তবে পদ্মাসেতু কর্তৃপক্ষ বলছে- দীর্ঘ সময় পানিতে থাকার পর উঠে আসা স্টিনজারগুলো পদ্মা সেতুতে ব্যবহার হবে না। তবে মূল্যবান স্টিনজারগুলো ঠিকাদার অন্য কোন অস্থায়ী কাজে ব্যবহার করতে পারবে।
এদিকে পদ্মা সেতুর জন্য অর্ডার করার পর ইউরোপের দেশ লুকজেমবার থেকে শীপে করে নতুন ১৯২টি স্টেনজার সমুদ্র পথে রওনা হয়েছে। চালানটি ৩১ জানুয়ারি মোংলা বন্দররে পৌঁছার কথা রয়েছে। কাস্টমসের ফর্মালিটির পর লাইটার জাহাজে করে নিয়ে আসা হবে মাওয়ায়।
গত ৩১ জুলাই মাসে পদ্মায় আকস্মিক ভাঙ্গনে মাওয়ার কুমারভোগ ইয়ার্ডে সংরক্ষিত ১৯২টি রেলওয়ে স্টেনজার এবং ১২৬টি রোডওয়ে স্লাবসহ নানা যন্ত্রপাতি ও ক্রেন বিলীন হয়ে যায়। ইতোমধ্যেই বিলীন হওয়া রোডওয়ে স্লাবগুলো ইয়ার্ডের ভেতরেই পুন: নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। তাই সেতুর গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ বিলীন হয়েগেলেও যথাসময়ে সফল সমাধান আনা সম্ভব হয়েছে। এতে এতো বড় চ্যালেঞ্জর পরও সেতুর অগ্রগতিতে তেমন বিঘ্নিত হয়নি।
সেতু কর্তৃপক্ষ জানায়, নদী ভাঙ্গনে তলিয়ে যাওয়ার পর বালুর নিচে চাপা পড়ে যায় স্টিনজারগুলো। ঠিকাদার ২/৩ দিন ধরে চেষ্টার পর বুধবার (১৩ জানুয়ারি) চারটি স্টিনজারের একটি গ্রুপ তুলে আনে। পদ্মার পানি কমে যাওয়ায় ধীরে ধীরে সবগুলোই তুলে আনা সম্ভব হবে।
পদ্মা বহুমুখী সেতুর প্রকল্প পরিচালক মো. সফিকুল ইসলাম বলেন, ঠিকাদার উত্তোলন করছে এগুলো। কিন্তু পদ্মা সেতুতে ব্যবহার উপযোগী নয়। ঠিকাদারের খরচেই নতুন করে তৈরি করে আনা স্টিনজার পদ্মা সেতুতে স্থাপন হবে।
শৈলকূপায় নসিমনের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষে ছয়জন নিহত
এই নিউজ মোট   33    বার পড়া হয়েছে


জাতীয়



বিজ্ঞাপন
ওকে নিউজ পরিবার
Shekh MD. Obydul Kabir
Editor
See More » 

প্রকাশক ও সম্পাদক : শেখ মো: ওবাইদুল কবির
ঠিকানা : ১২৪/৭, নিউ কাকরাইল রোড, শান্তিনগর প্লাজা (২য় তলা), শান্তিনগর, ঢাকা-১২১৭।, ফোন : ০১৬১৮১৮৩৬৭৭, ই-মেইল-oknews24bd@gmail.com
Powered by : OK NEWS (PVT) LTD.